বিএনপির আমলে বাবা-মায়ের দাফনের সুযোগও মেলেনি: কাদের

442

গত এক যুগ ধরে বিএনপি নেতাকর্মীদের কোনও ঈদ নেই- দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের জবাবে বিএনপি-জামাত জোট সরকারের নির্যাতন-নিপীড়নের কথা স্মরণ করিয়ে দিলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

ফখরুলের বক্তব্যের জবাবে কাদের বলেন, ‘আপনারা কি ভুলে গেছেন, ২০০১ সালে ক্ষমতায় থাকাকালীন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ওপর যে নির্মম নির্যাতনের স্টিম রোলার চালিয়েছিলেন?’

শনিবার (১৫ মে) জাতীয় সংসদ ভবন প্রাঙ্গণে সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

এর আগে গতকাল ঈদের নামাজ পড়ে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের ফখরুল বলেছিলেন, ‘ঈদ বলতে আমরা সব সময় যেটা বুঝি, সেই ঈদ গত এক যুগ ধরে আমাদের নেই। কারণ, মিথ্যা মামলা দেয়া ও নেতাকর্মীদের গুম করা হয়েছে। এমন একটা অবস্থা, যেন এই দেশে শুধু আমাদের নেতাকর্মীরাই আসামি।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘২০০১ সালে বিএনপি নেতৃত্বাধীন চার দলীয় জোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী এলাকায় বাড়ি-ঘরে যেতে পারেনি, সেই ইতিহাস বেশিদিন আগের নয়।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপির আমলে মা-বাবা মারা গেলেও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা গ্রামের বাড়ি যেতে পারেনি, দাফন-কাফনের শেষ সুযোগটুকুও দেয়া হয়নি। মুসলমানদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব ঈদের নামাজ পড়া অবস্থায়ও গ্রেফতার করা হয়েছিল।’

শেখ হাসিনা সরকার বিএনপির আমলের নির্যাতনের পুনরাবৃত্তি ঘটানোর কোনও নজির স্থাপন করেনি বলেও দাবি করেন কাদের।

ঈদফেরতদের বাঁধভাঙা জনস্রোতে করোনার সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এ অবস্থায় জনসমাগম এড়িয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ব্যাপারে সর্বোচ্চ সতর্কতা পালন করতে হবে।’

১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি জানান, আগামী সোমবার (১৭ মে) আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আগামীকাল রবিবার ও সোমবার (১৬ ও ১৭ মে) আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক উপকমিটি তথ্য ও সংবাদচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠান করবে। ১৬ মে সকাল ১১টায় ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে। সোমবার সকাল ১১টায় বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা হবে।

পরদিন সোমবার বিকেল ৩টায় মহানগর নাট্য মঞ্চে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের দোয়া মাহফিল ও আলোচনা অনুষ্ঠান। এছাড়া সারা দেশে মসজিদ, মন্দির, গির্জা ও প্যাগোডায় বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনা করা হবে বলেও জানান কাদের।

গত এক যুগ ধরে বিএনপি নেতাকর্মীদের কোনও ঈদ নেই- দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের জবাবে বিএনপি-জামাত জোট সরকারের নির্যাতন-নিপীড়নের কথা স্মরণ করিয়ে দিলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

ফখরুলের বক্তব্যের জবাবে কাদের বলেন, ‘আপনারা কি ভুলে গেছেন, ২০০১ সালে ক্ষমতায় থাকাকালীন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ওপর যে নির্মম নির্যাতনের স্টিম রোলার চালিয়েছিলেন?’

শনিবার (১৫ মে) জাতীয় সংসদ ভবন প্রাঙ্গণে সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

এর আগে গতকাল ঈদের নামাজ পড়ে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের ফখরুল বলেছিলেন, ‘ঈদ বলতে আমরা সব সময় যেটা বুঝি, সেই ঈদ গত এক যুগ ধরে আমাদের নেই। কারণ, মিথ্যা মামলা দেয়া ও নেতাকর্মীদের গুম করা হয়েছে। এমন একটা অবস্থা, যেন এই দেশে শুধু আমাদের নেতাকর্মীরাই আসামি।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘২০০১ সালে বিএনপি নেতৃত্বাধীন চার দলীয় জোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী এলাকায় বাড়ি-ঘরে যেতে পারেনি, সেই ইতিহাস বেশিদিন আগের নয়।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপির আমলে মা-বাবা মারা গেলেও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা গ্রামের বাড়ি যেতে পারেনি, দাফন-কাফনের শেষ সুযোগটুকুও দেয়া হয়নি। মুসলমানদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব ঈদের নামাজ পড়া অবস্থায়ও গ্রেফতার করা হয়েছিল।’

শেখ হাসিনা সরকার বিএনপির আমলের নির্যাতনের পুনরাবৃত্তি ঘটানোর কোনও নজির স্থাপন করেনি বলেও দাবি করেন কাদের।

ঈদফেরতদের বাঁধভাঙা জনস্রোতে করোনার সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এ অবস্থায় জনসমাগম এড়িয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ব্যাপারে সর্বোচ্চ সতর্কতা পালন করতে হবে।’

১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি জানান, আগামী সোমবার (১৭ মে) আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আগামীকাল রবিবার ও সোমবার (১৬ ও ১৭ মে) আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক উপকমিটি তথ্য ও সংবাদচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠান করবে। ১৬ মে সকাল ১১টায় ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে। সোমবার সকাল ১১টায় বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা হবে।

পরদিন সোমবার বিকেল ৩টায় মহানগর নাট্য মঞ্চে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের দোয়া মাহফিল ও আলোচনা অনুষ্ঠান। এছাড়া সারা দেশে মসজিদ, মন্দির, গির্জা ও প্যাগোডায় বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনা করা হবে বলেও জানান কাদের।

চ্যানেল উগান্ডা

প্রতিবেদন ঢাকা ডন