আল্লাহর সাহায্যে ইসরাইলের বিরুদ্ধে ৬ মাস যুদ্ধ চালানোর মতো ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে: হামাস

2008

ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের সামরিক শাখা ইয্যাদ্দিন আল কাসসাম ব্রিগেডের মুখপাত্র আবু ওবায়দা বলেছেন, “আল্লাহর সাহায্যে আমরা ইসরাইলের বিরুদ্ধে ৬ মাস যুদ্ধের চালিয়ে যাওয়ার মতো ক্ষেপণাস্ত্র মজুদ রেখেছি।”

হামাসের রকেট হামলায় এক ইসরাইলি নিহত হবার কয়েক মিনিট পর তিনি এই ঘোষণা দিলেন।

আবু ওবায়দা হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, “গাজার আবাসিক ভবনে নির্বিচার বোমা হামলা চালিয়ে ফিলিস্তিনি নাগরিকদের হত্যার প্রতিশোধ হিসেবে ইসরাইলের জন্য শিগগিরই বড় ধরণের পরিণতি অপেক্ষা করছে।”

এর আগে, হামাসের ছোড়া রকেট ইসরাইলের রাজধানী তেলআবিবের রামাত গান এলাকার একটি ভবনে আঘাত হানে। এতে ৫০ বছর বয়সী এক ইসরাইলি নাগরিক নিহত ও কয়েকজন আহত হয়েছে। এ ছাড়া তেলআবিবের কাছে আরব টাউন, রিশন লিজন এলাকায়ও রকেট বিস্ফোরিত হয়।

ইসরাইলের পক্ষ থেকে রকেট হামলার ছবি টুইট করে জানানো হয়, তেলআবিব মেট্রোপলিটন এলকায় রকেট হামলা চালানো হয়েছে। এটি মধ্য ইসরাইলের রামাত গান আবাসিক এলাকায় বিস্ফোরিত হয়েছে।

গত সোমবার থেকে গাজায় আগ্রাসনের প্রতিশোধ হিসেবে ইসরাইলের রাজধানী তেলআবিবসহ বিভিন্ন এলাকায় দুই হাজারের বেশি রকেট ছুড়েছে ফিলিস্তিনিরা।

আরও পড়ুন

নিজের ‘ভুল বাজিতে ফেঁসে গেছেন’ নেতানিয়াহু

ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন। গত কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ সংঘাতের ঘটনা এবার ঘটেছে। সংঘাত বন্ধে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশগুলোর কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নেই। তবে মুসলিম বিশ্বের কয়েকটি দেশ ইতোমধ্যে এর প্রতিবাদ জানিয়েছে।

এ নিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার বিশ্লেষণে বলা হয়, নিজের ‘ভুল বাজিতে ফেঁসে গেছেন’ ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু।

আল জাজিরার বিশ্লেষক মারওয়ান বিশারা বলেন, ‌’ভুল বাজি ধরেছেন নেতানিয়াহু। আর এতে তিনি ফেঁসে গেছেন। কারণ ইসরায়েলের প্রধান বিমানবন্দরগুলো হুমকির মুখে রয়েছে। একবার যদি বিমানবন্দরগুলো সত্যি হুমকির মধ্যে পড়ে যায় তাহলে তা ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর পক্ষে নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হবে।’

‘নেতানিয়াহু এমন কিছু শুরু করেছিলেন যা তিনি আশা করেননি। পরিস্থিতি যে এভাবে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাবে তা তিনি কল্পনা করেননি। যেমনটি আমরা দেখেছি, ফিলিস্তিন ও ইহুদিবাদী ইসরায়েল নিয়ন্ত্রিত শহরগুলোতে। পশ্চিম তীর এবং জেরুজালেমে দেখেছি। আমরা অবশ্যই গাজায় এটি দেখছি।’ কথাগুলো বলছিলেন মারওয়ান বিশারা।

আল্লাহর সাহায্যে ইসরাইলের বিরুদ্ধে ৬ মাস যুদ্ধ চালানোর মতো ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে: হামাস