তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের বিরুদ্ধে সংসদ সদস্য মমতাজ এর প্রতারণার মামলা

1235

আজ শুক্রবার সংসদ সদস্য ও বিতর্কিত মমতাজ মামলা করেন তিনি মামলা উল্লেখ করেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বিয়ের প্রলোভন দেখায় অনেকবার তার সাথে সময় কাটাচ্ছেন এখন বিয়া করার কোন মনে করেন না হাছান মাহমুদ তাই মমতাজ মামলা করছেন

চ্যানেল উগান্ডার সাংবাদিক ডন সংসদ সদস্য মমতাজ কে প্রশ্ন করেন আপনাদের মামলা করতাছেন আপনাদের মান সম্মান সব যাবে মমতাজ উত্তরে বলেন আমার কোন মান সম্মান নাই মান সম্মান থাকলে কি আর আমি সদস্য মমতাজ হইতাম আমার মান-সম্মান চলে গেছে আর হাছান মাহমুদ আমার সাথে অনেকবার বিভিন্ন জায়গায় সময় কাটায় কাটায় সে আমার কাছে সব ডকুমেন্ট আছে এমন প্রমাণ আছে তাই আমি মামলা করতে বাধ্য হয়েছি

মমতাজ বলেন সিনালু গানটা সাংবাদিকগণ কে যে সে আগে আমার সাথে যোগাযোগ করত আজকে গত ছয় মাসে আমার সাথে কোন যোগাযোগ এবং আমি ফোন করলে ফোন ধরে না তার অফিসে গেলে তার অফিসের দারোয়ান দিয়ে বের করে দেয় তাই আমি অপমান হয়েছি এইজন্য আমি মামলা করতে বাধ্য হয়েছি

এরার হাসান মাহমুদ এর নামে অভিযোগ। তিনি মমতাজ এমপি কে বিয়ের প্লোবন দেখিয়ে একাধিক বার ধর্ষণের চেষ্টা করতে চেয়েছিলেন বলে জানা যাই গোপন সুত্রে। হাসান মাহমুদ কে এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে হাসান মাহমুদ চুপ ছিলেন।

হাসান মাহমুদ জানান মমতাজ কে তার অনেক আগে থেকে পছন্দ। কিন্তু মমতাজ পাত্তা দিতেন না তেমন। এই বিষয় জানার পর জানার পর হাসান মাহমুদ মমতাজ কে গনভবনে ডাকেন এবং যেখানে আপত্তিকর কথা বাত্রা বলে বলে যানা যাই।

তাছাড়া এই নিয়ে সোসাল মিডিয়ায় তোলপার চলেন। জনগন জানতে চাই কথাটা কততুর সত্যি। কেনো বাংলাদেশ মিডিয়া গুলো চুপ আছে কেনো তারা মুখ খুলছেন না।এই নিয়ে আল জাজিরার রিপোর্ট আসবে বলে যানা যাই।

হাসান মাহমুদ জানান এসব গুজব এগুলো বিএনপি জামাতের মানুষ এর কারসাজি।এসব গুজবে কান দিতে মানা করেন হাসান মাহমুদ। তিনি বলেন সরকারকে চাপে ফেলতে আমার নিয়ে এমন বিভন্তিকর কথা বলা হচ্ছে। হাসান মাহমুদ এর চরিত্র ফুলের মত পবিত্র বলে জানা গেছে তিনি এমন কাজ কখনো করতে পারেন না বলে জানান।

আরো বলেন আমি ৫ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করি আমি একজন নেতা হয়ে মমতাজ এমপি কে কখনে বিয়ে করতে চাই নি।মমতাজ আমার প্রেমের অফার দিছিলো আমি রাজি হয়নি কখনো। এসব গুজব কখনো ছাড়াবেন না বলে মন্তব্য করেন হাসান মাহমুদ।

হাসান মাহমুদ এবং মমতাজ এর নিয়ে এমন কথা সম্পুর্ন ভাবে মিথ্যা এবং বানানো। এসব কথা বলা থেকে আপনারা এবং আপনাদের সন্তানকে দুরে রাখুন। দেশের বড় বড় নেতাদের নিয়ে এমন টা কখনো বলবেন না। এই নিউজটা করার একমাত্র লক্ষ সত্যিটা জেনে তারপর আপনারা মন্তব্য করবেন।

চ্যানেল উগান্ডা

ঢাকা সাংবাদিক ডন