ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চলন্ত ট্রেন থামিয়ে চালককে মারধর!

1270

ঢাকা-চট্রগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট রেলপথের ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মালবাহী কন্টেইনার ট্রেনের সামনে মোটরসাইকেল পড়ে দুর্ঘটনা ঘটেছে।
শনিবার (২৯ মে) বেলা আড়াইটার দিকে জেলা শহরের টিএ রোড রেলগেইট এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আরাফাত (২০) নামের এক যুবক আহত হয়েছেন।

এছাড়াও আহত তরুণের সহযোগিদের মারধরে ট্রেনের সহকারী চালক জসিম (৪০) আহত হয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গত ২৬মার্চ থেকে ২৮মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডবে ট্রেনের সিগন্যাল ব্যবস্থা পুরাপুরি অকেজো রয়েছে। জেলা শহরের তিনটি রেলগেইট ভেঙে ফেলায় ম্যানুয়ালে হাতের মাধ্যমে ইশারায় গেইটম্যান কাজ করতে হচ্ছে।

শনিবার দুপুরে জেলা শহরের টিএ রোড থেকে কাউতুলির দিকে ৬/৭টি মোটরসাইকেলের বহর যাচ্ছিল। টিএ রোডের রেললাইন অতিক্রম করার সময় মালবাহী একটি ট্রেন চট্টগ্রামের দিকে যাচ্ছিল। এসময় রেললাইনের কাছাকাছি মোটরসাইকেলের বহর দেখে ট্রেন থেকে একাধিকবার হুইসেল দেওয়া হয় এবং রেলগেইট ম্যান বাঁশি বাজান। কিন্তু মোটরসাইকেলের বহরের কেউ সিগন্যাল না মেনে রেললাইন অতিক্রম হতে গেলে একটি মোটরসাইকেল ট্রেনের ইঞ্জিনের আটকে পড়লে তা ধীরগতিতে সামনে টেনে নিয়ে যান। এসময় স্থানীয় কয়েকজন শ্রমিক মোটরসাইকেলে আটকে পড়া দুই তরুণকে টেনে নামিয়ে উদ্ধার করেন। এরমধ্যে আরাফাত নামের এক তরুণ আহত হয়। ট্রেনটি শিমরাইলকান্দি এলাকায় গিয়ে থামালে মোটরসাইকেলের বহরে থাকা অন্যান্য তরুণরা ট্রেনের চালক আনোয়ার ও সহকারী চালক জসিমকে মারধর করে। এরমধ্যে জসিমকে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশনের মাস্টার সোয়েব আহমেদ জানান, হেফাজতের তাণ্ডন্ডবের পর সিগন্যাল ব্যবস্থা অকেজো আছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সকল ট্রেন যাত্রাবিরতি বন্ধ আছে। এরমধ্যে রেলগেইটম্যানরা বাঁশি বাজিয়ে কাজ করছেন। তাদের সিগন্যাল না মানায় এই ঘটনা ঘটেছে। আহত ট্রেন চালককে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

আখাউড়া রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল করিম জানান, ‘সহকারী লোকো মাস্টারকে মারধর ও হামলার ঘটনায় আইনুসারে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছে পুলিশ।

চ্যানেল উগান্ডা