শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে রাজপথ অচলের হুঁশিয়ারি

180

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিয়ে সশরীরে পরীক্ষা গ্রহণ ও ক্লাস শুরু করার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। আগামী ১ জুনের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেয়ার দাবি জানানো হয়। অন্যথায় রাজপথ অচল করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে বাধ্য করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তারা।

রোববার দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর নীলক্ষেত মোড়ে শিক্ষার্থীদের কর্মসূচিতে এই হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।
মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে বারবার আশ্বাস দিয়েও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে কোনো প্রস্তুতি নিচ্ছে না শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তারা বলেন, একদিনের মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে হবে। যদি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া না হয়, তাহলে রাজপথ অচল করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে খুলতে বাধ্য করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রীর কথার সমালোচনা করে শিক্ষার্থীরা বলেন, শিক্ষামন্ত্রী দীর্ঘদিন ধরে টালবাহানা করে আসছেন। এটা শিক্ষার্থীর সাথে বৈষম্য করা হচ্ছে। শুধু শিক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রহসন করা হয়। তারা বলেন, শিক্ষামন্ত্রী এমনভাবে কথা বলেন যেন শিক্ষা মন্ত্রণালয় করোনার আশ্রয়স্থল। দেশে সবকিছুই সচল রয়েছে অথচ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। আগামীকালের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় না খুললে শিক্ষামন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করা হবে বলেও জানান তারা।স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া ও মাদকমুক্ত ক্যাম্পাসের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল।

শনিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের উদ্যোগে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকনের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবন, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদ জুয়েল ও সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিন প্রমুখ।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি সাজিদ বাবু, পার্থ দেব মন্ডল, আশরাফুল আলম ফকির লিংকন, যুগ্ম-সম্পাদক এ বি এম মাহমুদ আলম সরদার, মইনুদ্দিন রাজু, নিজাম উদ্দিন রিপন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের আহ্বায়ক রাকিব হোসেন, সদস্য সচিব আমিনুর রহমান আমান প্রমুখ।

বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে ছাত্রদল নেতারা অবিলম্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি জানান। পাশাপাশি মাদকমুক্ত ক্যাম্পাসের দাবি জানান ছাত্রদল নেতারা।

এ সময় শিক্ষার্থীরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পক্ষে গণস্বাক্ষর গ্রহণ করে। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার জন্য সরকারের কাছে আহ্বান জানান।

আন্দোলনে অংশ নিয়েছেন আইসিটি বিভাগের ১২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী আফসার। তিনি বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছাড়া দেশের সবকিছুই স্বাভাবিক চলছে, সেখানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে রাখার কোনো যৌক্তিকতা নেই। অনতিবিলম্বে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে।

বিক্ষোভে শিক্ষার্থীরা, ‘আমাদের দাবি মানতে হবে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা চাই’, ‘হাট বাজারে মানুষের ঢল, বন্ধ কেনো পরীক্ষার হল’, ‘অনলাইন পরীক্ষা মানি না, মানবো না’, ‘শিক্ষা নিয়ে তামাশা মানি না, মানবো না’ এসব স্লোগান দিতে থাকেন।

এ সময় তারা ‘আর এক দিনও দেরি নয়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা চাই’, ‘হাট বাজারে মানুষের ঢল, বন্ধ কেনো পরীক্ষার হল’, ‘অনলাইন শিক্ষা মানি না, অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ মানি না’, ‘অনিশ্চিত জীবন থেকে মুক্তি দিন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিন’ ইত্যাদি স্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন।

চ্যানেল উগান্ডা