দেখতে বউয়ের চেয়ে শাশুড়ি সুন্দর তাই শাশুড়িকে বিয়ে করেছিঃসিলেটের আলী

167

মাত্র ১১ দিন আগে ধূ’মধাম করে বিয়ে হয়েছিল নূ’রন্নাহার খা’তুনের (১৯)। শ্ব’শুরবা’ড়িতে এক সপ্তাহ অ’বস্থানের পর শুক্রবার বাবার বাড়ি ফিরে আসেন নুরন্নাহার। এর পর দিনই শ’নিবার বিকালে ঘর ভাঙে তার। বর মো’নছের আলী (৩২) শ্ব’শুরবা’ড়ি গিয়ে নববধূ নূ’রন্নাহা’রকে তা’লা’ক দিয়ে শা’শুড়ি মাজেদা বেগমকে (৪০) বি’য়ে করে চলে যায়।

দুদিন আগের শ্বা’শুড়ি মা’জে’দা এখন মো’নছের আলীর স্ত্রী’ হওয়ায় এলাকায় স’মালো’চনার ঝড় বইছে।এমন ঘ’ট’না ঘটেছে গোপালপুর উ’পজে’লার কড়িয়াটা গ্রামে।

জানা যায়, ধ’নবাড়ী উ’পজে’লার হাজরাবাড়ীর পূ’র্বপা’ড়া গ্রামের মৃ,ত ওয়াহেদ আ’লীর ছে’লে মো’নছের আলী গত ২ অক্টোবর গো’পালপুর উ’পজে’লার কড়িয়াটা গ্রামের নূর ইস’লামের মে’য়ে নূরন্নাহার খাতুনকে বি,য়ে করেন। বিয়ের পর দিন শ্বা’শুড়ি মা’জেদা বেগম মে’য়ের বা’ড়ি বেড়াতে যান।

মে’য়ে’র স’ঙ্গে এক সপ্তাহ সেখানে অবস্থানের পর শুক্রবার মে’য়ে ও মে’য়ে’র স্বা’মী’কে নিয়ে নিজবাড়ি ফেরেন। শনিবার স’কালে নূ’রন্নাহার মো’নছেরের স’ঙ্গে সংসার ক’রবেন না বলে জানান।

শুরু হয় পা’রিবারিক ক’লহ। শ্বাশুড়ি মা’জেদা বেগম তখন নূরন্নাহার সংসার না করলে তিনি নতুন জা’মাতার সংসার করবেন বলে জানান। এ অ’বস্থায় অ’সহায় শ্বশুর নূর ইস’লাম গ্রাম্য সা’লিশ ডাকেন। হা’দিরা ই’উনিয়ন পরিষদের চে’য়ারম্যান আবদুল কাদের তা’লুকদার,

ইউপি সদস্য নজরুল ইস’লামসহ এলাকার গণ্যমান্যরা সা’লিশি বৈঠকে বসেন। সা’মাজিক বিচারে মাজেদা বেগম ও মোনছের আ’লীকে মা’রধর করা হয়। এর পর পুরো প’রিবারের স’ম্মতিতে নূর ইস’লাম প্রথমে স্ত্রী’ মা’জেদা বেগমকে তালাক দেন। এর পর বর মো’নছের আলী ন’বপরিণীতা নূ’রন্নাহারকে তালাক দেন।

এর পর একই অনুষ্ঠানে সবার উ’পস্থিতিতে মো’নছের আলীর স’ঙ্গে মা’জেদা বেগমের এক লা’খ টাকা কা’বিনে বি,য়ে হয়। হাদিরা ই’উনিয়নের নি’কাহ রেজিস্ট্রার কাজী জি’নাত এসব কাজে যু’ক্ত ছি’লেন। তিনি জানান, ইউপি চে’য়ারম্যান, মেম্বার, গ্রাম্য মাতবর এবং ওই প’রিবারের সব সদস্যের স’ম্মতিতে দুটি তালাক এবং একটি বি’য়ের কাজ একই অনুষ্ঠানে সম্পাদন করা হয়।

ইউপি সদস্য ন’জরুল ইস’লাম জানান, পুরো কাজটি হয়েছে ওই পরিবারের স’ম্মতিতে। তবে শাশুড়ি বিয়ে করার ঘ’টনায় আ’পত্তি থাকায় গ্রা’মবাসীর উপস্থিতিতে মোনছের ও মা’জেদাকে শারী’রিক শা’স্তি দেয়া হয়।

ইউপি চেয়ারম্যান আ’বদুল কাদের তালুকদার জানান, শাশুড়ি বিয়ের খবরে ক্ষু’ব্ধ গ্রামবাসী বাড়ি ঘেরাও করে মা’রপিট শুরু করেন। খবর পেয়ে তিনি ঘ’টনাস্থলে যান। প’রিবারের সবার সম্মতির বি’ষয়টি নিশ্চিত হয়ে তিনি বিয়ের সম্মতি দেন। এদিকে শাশু’ড়ি বিয়ের খবরে দুদিন ধরে অ’নেক মানুষ ভিড় করছেন মো’নছের আলীর বা’ড়িতে।