হিন্দু ধর্ম থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন ৫ সদস্যের একটি পরিবার

617

ফেনীতে হিন্দু ধর্ম থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন ৫ সদস্যের একটি পরিবার। বৃহস্পতিবার আদালতে এফিডেভিটের মাধ্যমে স্ত্রী স্বরসতি দাস ও তিন সন্তানসহ স্বপরিবারে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন শহরের সুলতানপুর এলাকার বাসিন্দা লিঠন চন্দ্র দাস।

তাদের বাড়ী নোয়াখালি জেলার সেনবাগ উপজেলার বিজবাগ ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামে।বৃহস্পতিবার ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে এফিডেভিটের মাধ্যমে তারা সনাতন ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পর লিঠন চন্দ্র দাসের নাম রাখা হয় মোঃ আলী ও তার স্ত্রী স্বরসতি দাসের নাম রাখা হয় সুমাইয়া আক্তার।জয়পুরহাট জেলার কালাই উপজেলার মাত্রাই ইউনিয়নের চঞ্চল মালী সনাতন (হিন্দু) ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। ২৮-০৩-১৯ বগুড়া জেলা নোটারী পাবলিকেরর মাধ্যমে হলফনামা ( ধর্মান্তর সম্পর্কিত ঘোষনা) সম্পাদন করেন। সে জয়পুরহাট জেলা কালাই উপজেলার মাত্রাই ইউনিয়নের মাত্রাই গ্রামের বাসিন্দা।তার পিতা চন্দন মালী, মাতা ঝরনা রানী । ইসলাম ধর্ম গ্রহনকালে চঞ্চল মালীর বয়স ২৩ বছর। কালাই উপজেলার মাত্রাই ইউনিয়নের চন্দন মালীর ছেলে চঞ্চল মালী স্বেচ্ছায় সনাতন ধর্ম ছেড়ে মুসলিম ধর্ম গ্রহন করলেন।

এ বিষয়ে চঞ্চল মালী বর্তমানে মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ্ বলেন, আমি সম্পূর্ন প্রাপ্ত বয়স্ক একজন মানুষ। আমার ভালো মন্দ বিচার করার মত জ্ঞান আছেমুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় আমি বড় হয়েছি। সনাতন ধর্ম আর ইসলাম ধর্মের ব্যাবধান বুঝতে পেরেছি। আমি আমার স্বইচ্ছাতেই কালেমা পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেছি। আমার বাকী জীবন ইসলাম ধর্মে কাটাবো। আমার নাম চঞ্চল মালী বাদ দিয়ে এখন মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ্ রেখেছি।