এডিটরস নয়, ওরা ইডিয়েটস গিল্ড আল জাজিরার অনুসন্ধানী

296

আল জাজিরার অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে সারাদেশ যখন তোলপাড় ঠিক তখন বাংলাদেশের গণমাধ্যমকে দেখা গেছে নিরব ভূমিকা পালন করতে। শুধু তাই নয় এটাকে মিথ্যা হিসেবে ব্যাখ্যা করতে চেয়েছেন সরকার দলীয় বিভিন্ন গণমাধ্যম। এছাড়া ক্ষমতাসীনদের গড়ে তোলা কথিত কিছু সাংবাদিক সংগঠন বিবৃতি দিয়ে আল জাজিরা বন্ধেরও দাবি জানিয়েছেন।

সরকার থেকে প্রতিবেদনের বিপক্ষে কোন যুক্তি না দে আল জাজিরার বাংলাদেশে চ্যানেলটি নিষিদ্ধ করার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)। সাংবাদিক মহলে জনপ্রিয় হলেও বর্তমান বিভিন্ন কারনের প্রশ্নবিদ্ধ সংগঠনটি। তা নিয়েও সাংবাদিক মহলেও বেশ ক্ষোভ রয়েছে। এসব সংগঠন গুলো প্রকাশ্যে অপ্রকাশ্যে সরাকার নিয়ন্ত্রণ করছে।

অন্যদিকে সরকার দলীয় গৃহপালিত গণমাধ্যমের সম্পাদকদের একটি সংগঠন এডিটরস গিল্ড। হাসিনার গোপন কথা প্রকাশ করে দেয়ায় তাদের গায়ে জ্বালা ধরেছে সংগঠনটির নেতাদের। সাংবাদিকতার নামে হাসিনার দালালি করতে করতে তারা জীবনটা পার করে দিয়েছে। মিথ্যাচার করতে করতে পৃথিবীতে সত্য বলতে যে একটি কথা আছে সেটাও তারা ভুলে গেছে। দেখা গেছে আন্তর্জাতিক প্রভাবশালী গণমাধ্যম আল জাজিরার বহুল আলোচিত ও চাঞ্চল্যকর একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদনকে বলছে খারাপ সাংবাদিকতা!

তাদের ক্ষোভের বড় কারণ হলো শেখ হাসিনাকে নিয়ে। সেনাপ্রধানের সাথে আল জাজিরা তাদের প্রতিবেদনে হাসিনাকে কেন জড়াল? তাদের দৃষ্টিতে তাদের মা জননী শেখ হাসিনা একজন পবিত্র ও নির্দোষ মানুষ। আল জাজিরা এভাবে তাকে অপমান করতে পারে না। আল জাজিরার সব তথ্যই নাকি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

শেখ হাসিনার এসব দালালদের মধ্যে একটি গ্রুপ হল-কথিত এডিটরস গিল্ড। এই গিল্ডের সভাপতি হল-বাংলাদেশের নষ্ট সাংবাদিকতার দিকপাল বলে পরিচিত-হাসিনার গোলাম মোজাম্মেল বাবু। এই ফোরামে আরও রয়েছে-গাজি টিভির প্রধান নির্বাহী ইশতিয়াক রেজা, ডিবিসির নির্বাহী প্রধান মঞ্জুরুল ইসলাম, এটি এন বাংলার জ ই মামুন ও বিডিনিউজের সম্পাদক তৌফিক ইমরোজ খালিদীসহ ক্ষমতাসীনদের গৃহপালিত অনেক সাংবাদিক। এসব সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে রয়েছে ক্যাসিনো থেকে শুরু করে নারী হেনস্তার অভিযোগ।

বিগত ১২ বছরে বিরোধী দলের হাজার হাজার নেতাকর্মীকে গুম-খুন ও অপহরণ করাতে তারাই শেখ হাসিনাকে উৎসাহীত করেছে। হাসিনা যত অপকর্ম করেছে সবই তারা গোপন রেখেছে। এমনকি মধ্যরাতের ভোটডাকাতির বিষয়টিও তারা প্রকাশ করেনি। শেখ হাসিনার সকল অপর্কে তারা সহযোগিতা করে যাচ্ছে। বিনিময়ে হাসিনাও তাদেরকে কোটি কোটি টাকা দিচ্ছে।

সাংবাদিক নামের এই কুলাঙ্গারগুলো শুধু গণমাধ্যমকেই ধ্বংস করছে না, তারা দেশটাকেও শেষ করে দিচ্ছে। তাই আমি বলি কি ওরা এডিটরস নয়, ওরা ইডিয়েটস গিল্ড।