হজের আবেদন বন্ধ করলো সৌদি আরব

276

সৌদি আরবের হজ ও ওমরা মন্ত্রণালয় এই বছর হজের আবেদন বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে। বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এই ঘোষণা দেয়া হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, শুক্রবার থেকে আবেদনের যাচাই-বাছাই ও রেজিস্ট্রেশনের কাজ করা হবে।এই বছর মোট পাঁচ লাখ ৫৮ হাজার দুই শ’ ৭০ জন হজের জন্য আবেদন করেছেন। এর মধ্যে ৫৯ ভাগ পুরুষ ও ৪১ ভাগ নারী।আবেদনকারীদের মধ্যে তিন ভাগের বয়স ২০ বছরের নিচে। এছাড়া হজের জন্য ২৬ ভাগ আবেদনকারী ২১-৩০ বছর বয়সী, ৩৮ ভাগ ৩১-৪০ বছর বয়সী, ২০ ভাগ ৪১-৫০ বছর বয়সী, ‌১১ ভাগ ৫১-৬০ বছর বয়সী এবং দুই ভাগের বয়স ৬০ বছরের উপরে বলে জানায় সৌদি হজ ও ওমরা মন্ত্রণালয়।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে এই বছরও সৌদি আরবের বাইরে থেকে কেউ হজের অনুমতি পাচ্ছেন না।

সৌদি হজ মন্ত্রণালয়ের সূত্রানুসারে, ১৫ থেকে ৬৫ বছর বয়সী দেশটির নাগরিক ও বাসিন্দাদের মধ্যে যারা গত পাঁচ বছর হজ করেননি, তাদের মধ্যে মাত্র ৬০ হাজার ব্যক্তি এই বছর হজের অনুমতি পাবেন।

সূত্র : আল-আরাবিয়াফেসবুকে কোনো পোস্ট দেখে হাহা (হাসি) রিয়াক্ট দেওয়া হারাম!
স,ম্প্রতি এরকমই নিদান দিলেন বাংলাদেশের একজন মৌ,লবী। তার মতে ইসলাম ধর্মের পরিপন্থী ফেসবুকের এই অপ,শনটি। কা,রণ কোনো ব্যক্তি যদি অন্য কোনো ব্যক্তিকে মজা করার উদ্দেশ্যে তার কথায় বা মি,ম দেখে হাহা রিঅ্যাক্ট দেন তাহলে ইসলাম সেই কা,জের অনুমতি দেয় না। ত,বে শুধু হাসি ম,জার উদ্দেশ্যে যদি কেউ এই রি,য়েক্ট দেন তাহলে তাতে আপত্তি কি,ছুই নেই।

ফে,সবুকে নেটিজেনের মজার উদ্দেশ্যে অনেকেই মি,ম শেয়ার করে থাকেন। যা দেখে অনেকেই মজা পান এবং হাহা রি,অ্যাক্ট দেয় এবং তার সঙ্গে মজার মজার ক,মেন্ট করেন। এতেই আপত্তি বাংলাদেশের ওই মৌ,লবীর। বাংলাদেশের মৌলবী আ,হমেদুল্লাহর দাবি, কোনো মানুষকে মজা করতে বা তাকে বিদ্রুপ করার জন্য কখনো হা,হা রিঅ্যাক্ট দেওয়া উচিত নয়। এই কাজ ইসলামবিরোধী। ইসলাম ধর্মের অবমাননা করা হয় হা হা রি,য়েক্ট দিয়ে!

প্র,সঙ্গত বাংলাদেশের এই মৌ’লবী কিন্তু অত্যন্ত জনপ্রিয় একজন ব্য,ক্তি। ফেসবুক এবং ই,উটিউবে তার ফ,লোয়ার্সের সংখ্যা প্রচুর। তবে মৌ,লবীর মুখে এই নিদান শুনে অবশ্য তার অনুরাগীরাও হাসি থামাতে পারেননি। ওই ভিডিওর নিচেই হাসির বন্যা বয়ে গিয়েছে। নে’টিজেনদের মধ্যে অনেকেই ওই পোস্টে হাহা রিঅ্যাক্ট দিয়েছেন। সো,শ্যাল মিডিয়ায় দ্রু,তগতিতে ভাইরাল হ’চ্ছে এই ভি’ডিও।