এবার পুলিশ স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ

1575

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে স্ত্রী ও ৩ ছেলে-মেয়েকে নিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন পলাশ কুরি (৩২)। পলাশের বর্তমান নাম আবদুর রহমান। তিনি উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়নের শ্রীরামপুর বাড়ির বাসিন্দা। স্বপরিবারে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করায় তাদের জন্য উপজেলার বিভিন্ন মসজিদে দোয়া করা হয়। আবদুর রহমান স্বপরিবারে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করায় উপজেলার পদ্মা ইলেক্ট্রনিক্সের মালিক আনোয়ার তাদের থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। এছাড়া রামগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জহির উদ্দিন জীবকা অর্জনের জন্য আবদুর রহমানকে একটি ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) লক্ষ্মীপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এফিডেভিটের মাধ্যমে পলাশ স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। ইসলাম গ্রহণকারী বাকিরা হলেন- পলাশের স্ত্রী শিখা রানী কুরি, মেয়ে অন্বেষা রানী কুরি, উর্সি রানী কুরি ও ছেলে আবির চন্দ্র কুরি। ধর্ম পরিবর্তন হওয়ার পরে তাদের বর্তমান নাম হচ্ছে আবদুর রহমান, তার স্ত্রী সুমাইয়া বেগম, মেয়ে আয়েশা আক্তার, খাদিজা আক্তার ও ছেলে মো. ইব্রাহিম। জানতে চাইলে আবদুর রহমান জানান, বুঝ-জ্ঞান হওয়ার পর থেকেই ইসলাম ধর্মের প্রতি তিনি দুর্বল ছিলেন। বিয়ে করে সংসার জীবন ভালোই চলছে। তার সংসারে দুই-মেয়ে ও এক ছেলে আছে। সম্প্রতি তিনি তার ইসলাম ধর্ম গ্রহণের ইচ্ছাটি স্ত্রীকে জানান। বিষয়টি জানার পর তার স্ত্রী তাকে অনুপ্রাণিত করেন। এরপর তিনি অনেকদিন ধরে মুসলমানদের রীতিনীতি পর্যালোচনা করেছেন। মহান আল্লাহ এবং সর্বশ্রেষ্ঠ নবী হযরত মোহাম্মদ (সঃ) এর প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করেছেন। সেই বিশ্বাস থেকেই গত বৃহস্পতিবার তিনি স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

এ ব্যাপারে রামগঞ্জ উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদ উল্যাহ জানান, কিছুদিন আগে আবদুর রহমান ইসলাম ধর্মের বিষয়টি তাকে জানান। বিষয়টি শুনে তিনি আবদুর রহমানকে আদালতে যাওয়ার পরামর্শ দেন। তিনি স্বপরিবারে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। তার ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়াসহ সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে বলে আশ্বাস দেন তিনি।

সর্বাত্মক কঠোর লকডাউনের চতুর্থ দিনে দাউদকান্দিতে লকডাউন অমান্য করে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে বিভিন্ন যানবাহন চলাচল করার কারণে সড়ক পরিবহণ আইনে ১৬ টি মাম,লা হয়েছে ও ৪৮ হাজার ৫ শ’ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

দাউদকান্দি সার্কেল এর সিনিয়র সহকারি পুলি,শ সুপার (এএসপি) মো. জুয়েল রানা বলেন,” করোনার সং,ক্রম,ণরোধে সর্বাত্মক কঠোর লকডাউন ও সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে

দাউদকান্দি থানার বিভিন্ন অংশসহ ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের টোলপ্লাজা এলাকায় দায়িত্বকালে আজ সারা দিনে যানবাহন আইনে ১৬ টি মামলা ৪৮ হাজার ৫০০ জরি,মানা করেছি।

এএসপি মো. জুয়েল রানা বলেন, করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট আমাদের দেশে সংক্রিমত হওয়ার কারণে আমরা বর্তমানে বিপদসংকুলে আছি। এমুহূর্তে সকলের স,তর্কতা হওয়া উচিত।

করো,নার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় লকডাউনে সরকারি নির্দেশনা মেনে চলুন,আপনি ও আপনার পরিবারকে নিরাপদ রাখতে অকারণে বাহিরে বের হওয়া থেকে বিরত থাকুন। সর্বদা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। মাস্ক ব্যবহার করুন।

তিনি গতকাল রোববার বিকাল সাড়ে ৬ টায় ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের হাইওয়ে এলাকার লকডাউনের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে স্থানীয় সংবাদকর্মীদের এসব তথ্য প্রদান করেন। এসময় সাথে ছিলেন মডেল থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মো. শফিউল আলম, টিআই মো. নুরুল আলম, এসআই জাহাঙ্গীর আলম, এসআই ফারুক হোসেন ও সার্জেন্ট মুজাহিদুল ইসলাম।