চান্দিনায় ভ্যাকসিন ভীতি দূর করতে টিকা নিলেন ৩ মুক্তিযোদ্ধা ও ৬ চিকিৎসক

108

।।আকিবুল ইসলাম হারেছ।। কুমিল্লার চান্দিনায় বহুল প্রতিক্ষীত করোনা ভাইরাসের টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে।রবিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স- এ কার্যক্রম শুরু হয়। করোনা ভাইরাসের টিকা নিয়ে মানুষের মনে আশঙ্কা, দ্বিধা ও সংকোচ রয়েছে। রয়েছে চিকিৎসকদের মনেও। আর সে সংকট, দ্বিধা ও আশঙ্কা দূর করতে এগিয়ে এলেন ৩ মুক্তিযোদ্ধা ও ৬ চিকিৎসক।

মুক্তিযোদ্ধা তিনজন হলেন- চান্দিনা উপজেলা চেয়ারম্যান বাবু তপন বকসী,স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রাক্তন উপ-পরিচালক ডা.ফজলুর রহমান ও মুক্তিযোদ্ধা নিরঞ্জন চন্দ্র সরকার।

অপরদিকে ৬ চিকিৎসক হলেন-ডা. গাজী মাহমুদুল হাসান,ডা. শিমুল রঞ্জন দে,ডা. সাইক বিন আলম,ডা.সাজ্জাদ হোসেন,ডা. ত্রিদিব কুমার কর(কনসালটেন্ট),ডা.হাসিনা আক্তার(কনসালটেন্ট)।তাঁরা সবাই চান্দিনা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক।

চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে এই টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয় সকাল সাড়ে এগারোটার দিকে। সেখানে প্রথম টিকা নেন স্বাস্থ্য বিভাগের প্রাক্তন উপ-পরিচালক ডা. ফজলুর রহমান। তারপর থেকেই একে একে চিকিৎসকরা টিকা নিতে নাম নিবন্ধন করে টিকা নিতে শুরু করেন।

ডা.গাজী মাহমুদুল হাসান,ডা.শিমুল রঞ্জন দে,ডা.সাইক বিন আলম বলেন, ইচ্ছে ছিল সবার আগে টিকা নেব-ইতিহাসে নাম লেখানোর এই সুযোগ আর হয়তো পাবো না, কিন্তু সেটা নিয়ম অনুযায়ী হয়নি। তারপরও প্রথম দিনে টিকা দিতে পারছি-এটাও অনেক আনন্দের,গর্বের।

টিকা নেবার পর কোনও অসুবিধা হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে ডা.গাজী মাহমুদুল হাসান বলেন, কোনও ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া অনুভব করছি না,আমি সুস্থ আছি।তিনি বলেন, আমি খুবই আনন্দিত যে এই টিকা দিতে পেরেছি।

সাধারণ মানুষের দ্বিধা এবং উৎকণ্ঠাটা বুঝি, কিন্তু এটা একেবারেই অমূলক-বলেন ডা. সাইক বিন আলম। টিকা নেবার পর তিনি বলেন, যে সরকার দেশে এনেছেন, তারা নিশ্চয়ই সব বুঝেশুনে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তাই আমাদের সরকারের উপর আরও বেশি আস্থা থাকা প্রয়োজন এবং আমি নিজে দিয়েছি। আমি সবাইকে নিশ্চিত করতে চাই, এতে কোনও ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হচ্ছে না।

মুক্তিযোদ্ধা ডা.ফজলুর রহমান বলেন, এই মহামারির সময় যখন অনেক দেশিই টিকা পায়নি, সেখানে আমাদের দেশ টিকা পেয়েছে এবং সে টিকা নেবার জন্য মানুষকে অনুরোধ করতে হবে-এটাই আমি বুঝতে পারছি না।

ডা.ফজলুর রহমান বলেন, আমরা সৌভাগ্যবান,আমাদের উচিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সরকারকে ধন্যবাদ দেওয়া।

উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা বাবু তপন বকসী বলেন, আমি চান্দিনা উপজেলায় টিকা কার্যক্রম সম্পাদন কমিটির একজন সদস্য। কমিটি নয় হাজার পৃষ্ঠার বৈজ্ঞানিক সব ডকুমেন্টস পরীক্ষা করে কোভিশিল্ডকে দেশে ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে। আমি শতভাগ নিশ্চিত যে, এটা একটি কার্যকর ও নিরাপদ টিকা।

টিকা নেবার বিষয়ে কারও কোনও দ্বিধা না করার প্রতি অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, বরং সবার কৃতজ্ঞ থাকা উচিত এবং সবার নির্ধারিত সময়ে একটি ডোজও নষ্ট না করে সবার টিকা নেওয়া উচিত।