কাদের মির্জাকে বহিষ্কা’রের ২ ঘণ্টার মধ্যেই আদেশ প্র’ত্যাহার

388

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার বি’রুদ্ধে আনীত জে’লা আওয়ামী লীগের অব্যাহতি ও কেন্দ্রের কাছে ব’হিষ্কারের সুপারিশ স্থগিত এবং প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে।শনিবার তাকে দল থেকে চূড়ান্ত ব’হিষ্কারের জন্য কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কাছে সুপারিশ এবং দলীয় সব কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারির ২ ঘণ্টার মধ্যেই সেটি প্রত্যাহার করে নেয় নোয়াখালী জে’লা আওয়ামী লীগ।

নোয়াখালী জে’লা আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিম বলেন, কাদের মির্জার বি’ষয়ে আলোচনা হয়েছে সত্যি; তবে এটি সম্পূর্ণভাবে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার দায়িত্বে আছে। তার নির্দেশ তো অমান্য করতে পারি না।

আমার অনুপস্থিতিতে নোয়াখালী জে’লা সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী এমপি আমার বি’ষয়টি নিয়ে আলাপ করে চিঠিটি তিনি পাঠিয়ে দিয়েছেন। যাই হোক, মির্জা কাদেরের বি’রুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার বি’ষয়টি অনিবার্য কারণবশত স্থগিত করলাম এবং এটা প্রত্যাহার করে নিলাম।

এর আগে শনিবার সন্ধ্যার পর নোয়াখালী জে’লা আওয়ামী লীগের দলীয় প্যাডে জে’লা আওয়ামী লীগ সভাপতি অধ্যক্ষ এএইচএম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্ম’দ একরামুল করিম চৌধুরী এমপির যৌথভাবে স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ সংবাদ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে।

পরবর্তীতে গণমাধ্যম কর্মীরা নোয়াখালী জে’লা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী এমপির মোবাইলে প্রেস বিজ্ঞপ্তির বি’ষয়টি জানতে চাইলে তিনি তা নিশ্চিত করেছিলেন।কিন্তু এর পরপরই নোয়াখালী জে’লা আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিম এ বি’ষয়ে তার বক্তব্য খণ্ডন করে উপরে উল্লেখিত বক্তব্য দিয়েছেন।

ম’স’জিদে ঢুকে যুবককে কু’পিয়ে হ’ত্যাচেষ্টা
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ম’স’জিদে ঢুকে শরিফুল্লাহ খান ইমন (২২) নামের এক যুবককে এলোপাতাড়ি কু’পিয়ে র’ক্তাক্ত করেছে প্র’তি’প’ক্ষ।শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে সদর উপজে’লার মাছিহাতা ইউনিয়নের ভাদেশ্বরা গ্রামের ভূঁইয়া বাড়ি জামে ম’স’জিদে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আ’হত ইমন ওই গ্রামের আলী আকবর খানের ছে’লে। তাকে আশ’ঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতা’লে পাঠানো হয়েছে।

আ’হত ইমনের চাচা ইসমাইল খান বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে বৈদ্যুতিক মিটারে আ’গু’ন লাগিয়ে দেন প্রতিবেশী আব্দুর রহমানের ছে’লে আবু বক্কর। শুক্রবার বিকেলে সদর মডেল থা’নায় অ’ভিযোগ দাখিল করার পর আজ শনিবার এসআই নুরুল আমিন ত’দ’ন্ত করে।

তিনি আরও বলেন, ইমন ভূঁইয়া বাড়ি জামে ম’স’জিদে আসরের নামাজ পড়তে যান। ওই বিষয়কে কেন্দ্র করে ম’স’জিদে ঢুকে আব্দুর রহমানের ছে’লে মু’স্তাকিম মিয়া, তার ছে’লে মিন্টু ও আলামীনসহ ১০-১৫ জন ইমনকে এলোপাতাড়ি কু’পিয়ে র’ক্তাক্ত করেন। এ ধরনের হা’ম’লা হওয়া পরিবার নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় থাকতে হচ্ছে আমাদের। আমি এর সঠিক বিচার চাই।

হাসপাতা’লের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল-মামুন বলেন, ইমনকে মুমূর্ষু অবস্থায় হাসপাতা’লে নিয়ে আসলে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতা’লে পাঠানো হয়েছে। শরীরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় জ’খ’মে প্রচুর র’ক্তক্ষরণ হয়েছে।

সদর মডেল থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) আব্দুর রহিম বলেন, আমি হাসপাতা’লে গিয়ে রোগীকে দেখে আসছি। এ ব্যাপারে মা’ম’লা হবে। দ্রুত সময়ে আ’সা’মিদের গ্রে’প্তা’র করে আইনের আওতায় আনা হবে।