আমি আমার বউ ১২ ভাতারি, এতে কারো বাপের মানসম্মান যায়নি, মামলা খাইতে না চাইলে চুপ থাকো

859

সোশ্যাল মিডিয়ায় যেসব কথা বলা হচ্ছে এসব হয়তো আমি সহ্য করতে পারছি কিন্তু তামিমা তো সহ্য করতে পারছে না। ও যদি যে কোনো মুহূর্তে রঙ ডিসিশন নেয় তাহলে এর দায়ভার কে নেবে? আর রাকিব সাহেব যেভাবে কথা বলেছে, এভাবে তো বলতে পারেন না। তামিমাকে কিছু বলা মানে আমাকে বলা।

তামিমা এখন আমার স্ত্রী। তাকে নিয়ে যদি কেউ উল্টোপাল্টা কথা বলে তাহলে আমি তার বি’রুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবো।বুধবার বনানীতে এক সংবাদ সম্মেলনে ক্রিকেটার নাসির হোসাইন এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে নাসিরের স্ত্রী তামিমা তাম্মিও উপস্থি্র ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে নাসির হোসাইন বলেন, ‘তামিমাকে আমি ৪ বছর ধরে খুব কাছ থেকে চিনি। আমরা দু’জনই প্রা’প্ত ব’য়স্ক। আমরা আইনগতভাবে, ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক বিয়ে করেছি। কোন সমস্যা থাকলে এভাবে লোক জানিয়ে বিয়ে করতাম না।’

নাসিরের কথায়, ‘আমি ওর ব্যাপারে সব জানতাম। ওর আগে বিয়ে হয়েছে, বাচ্চা আছে। ডিভোর্স হয়েছে। বিয়ের আগে আমরা লিগ্যাল ডিভোর্স পেপার হাতে নিয়েই বিয়ে করেছি। আমি চাইলে ডিভোর্স পেপার ফেসবুকে এসে দেখাতে পারতাম। কিন্তু দেখাইনি।’

সংবাদ সম্মেলনে তামিমা তাম্মি বলেন, ‘মিস্টার রাকিব আমাদের নিয়ে যা বলেছেন সেসব কথা সব মিথ্যা। তার কথার মধ্যে সত্য হলো রাকিবের সাথে আমার বিয়ে হয়েছিলো এবং আমাদের একটি বাচ্চা আছে। উনি যেটা করছেন সেটা এখন সবারই জানা হয়ে গেছে। তিনি যেসব মিথ্যে কথা বলেছেন তার প্রমাণ আমার কাছে আছে।’

তামিমার কথায়, ‘আমার নামে ইতমধ্যেই অনেক ফেক ফেসবুক আইডি খোলা হয়েছে। সেগুলো থেকে আমাদের নামে অ’পপ্রচার চা’লানো হচ্ছে। আমি বলতে চাই, আমার যে ফেসবুক আইডি রয়েছে সেটা এখন ডিঅ্যাকটিভ করা আছে। পরবর্তীতে আমরা কিছু বলেলে তা নাসিরের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ থেকে জানাবো।’

এদিকে ডিভোর্স পেপার ছাড়াই অন্যের স্ত্রী’কে বিয়ে করা এবং ডিভোর্স না দিয়ে বিয়ে করার অভিযোগে ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তার স্ত্রী তামিমার বি’রুদ্ধে মা’মলা করা হয়েছে। বুধবার ঢাকার চীফ মেট্রোপলিটন ম্যা’জিস্ট্রেট আ’দালতে তাদের বি’রুদ্ধে মা’মলা দায়ের করেছেন তামিমা সুলতানার প্রথম স্বা’মী রাকিব হাসান।

মার্চের ৩০ তারিখের মধ্যে ত’দন্ত প্রতিবেদন আ’দালতে জমা দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে পিবিআইকে। মা’মলায় দ’ণ্ডবিধির ৪৯৪/৪৯৭/৪৯৮/৫০০ ধারা অনুযায়ী তাদের বি’রুদ্ধে বিয়ের ত’থ্য গো’পন করে অন্যত্র বিয়ে, অন্যের স্ত্রী’কে প্রলুব্ধ করে প্র’তারণার মাধ্যমে বিয়ে, ব্যভিচার ও মানহানির অভিযোগ আনা হয়।

রাকিব হাসানের আইনজীবী ইশরাত হাসান জানান, আ’দালত তামিমা সুলতানার স্বা’মী রাকিব হাসানের জবানব’ন্দী গ্রহণ করেছেন এবং বি’ষয়টি ত’দন্তের জন্য পু’লিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন পিবিআইকে নির্দেশ দিয়েছে আ’দালত।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের দিনে নাসির গাঁটছড়া বাঁধেন নববধূ তামিমা সুলতানার সাথে। নাসিরের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ঘরোয়া পরিবেশে সম্পন্ন হয় বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। নাসির-পত্নীর বাড়ি টাঙ্গাইলে।